করোনা মোকাবিলায় থাইল্যান্ডে কারফিউ জারি

করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধে অন্যান্য বিধিনিষেধের পাশাপাশি রাজধানী ব্যাংকক এবং নয়টি প্রদেশে ৭ ঘণ্টার রাত্রিকালীন কারফিউ জারি করেছে থাইল্যান্ড সরকার।

শুক্রবার দীর্ঘ বৈঠকের পরে সরকারের করোনাভাইরাস টাস্কফোর্সের এক কর্মকর্তা বিধিনিষেধ আরও কড়াকড়ির ঘোষণা দেন।

এতে বলা হয়, সোমবার থেকে প্রতিদিন রাত ৯টা থেকে ভোর ৪টা পর্যন্ত কারফিউ বলবৎ থাকবে এবং এ সময় জনগণকে ঘরে থাকতে বলা হয়েছে।

এই ঘোষণায় রাজধানীর ১ কোটির বেশি লোকের পাশাপাশি আশপাশের এলাকা এবং দক্ষিণাঞ্চলীয় প্রদেশের জনগণের ওপর প্রভাব পড়বে।

করোনা টাস্কফোর্সেও সহকারী মুখপাত্র আপিশামাই শ্রীরঙ্গসন বলেন, “সর্বাধিক বিধিনিষেধ আরোপ এলাকায় বসবাসকারী লোকদের অসুবিধার জন্য আমরা ক্ষমাপ্রার্থী, তবে এটি রোগ নিয়ন্ত্রণে সহায়ক হবে, এতে থাইল্যান্ড জয়ী হবে।”

আরও বলেন, “এ সময় অপ্রয়োজনীয় ভ্রমণ নিষিদ্ধ থাকবে।”

বাসিন্দাদের ৫ জনের বেশি লোকের একত্রে জড়ো হতে নিষেধ করা হয়েছে, অন্যদিকে গণপরিবহন প্রতিদিন রাত ৯টা থেকে বন্ধ থাকবে।

সুপারমার্কেট, রেস্তোরাঁ, ব্যাংক, ফার্মেসি এবং ইলেকট্রনিকস দোকান খোলা থাকবে, অন্যান্য দোকান অবশ্যই বন্ধ রাখতে হবে।

এয়ার এশিয়া শুক্রবার সন্ধ্যায় বলেছে, সরকারি সিদ্ধান্তকে সহযোগিতার জন্য তারা অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট বন্ধ রাখবে।

সংস্থাাটি বলেছে, তারা ক্ষতিগ্রস্ত যাত্রীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে এবং ১ আগস্ট পুনরায় ফ্লাইট চালু হবে।

দেশটিতে এপ্রিলে শুরু হয়েছে সংক্রমণের তৃতীয় ধাপ। এ পর্যন্ত মোট আক্রান্ত হয়েছে ৩ লাখ ২৬ হাজার ৮৩২ জন ও মারা গেছে ২ হাজার ৬২৫ জন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *